Primary TET Recruitment – ১১ হাজার ৫০০ টি শূন্যপদ থাকার সত্ত্বেও কেন স্থগিতাদেশ জারি করলো সুপ্রিম কোর্ট?

দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে এই Primary TET Recruitment দুর্নীতি মামলা। এবার এই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া আবারও পিছিয়ে গেল‌। ১১ হাজার ৫০০ শূন্য পদ থাকার সত্ত্বেও স্থগিতাদেশ জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট! এবার তাহলে কী হবে? কেন সুপ্রিম কোর্ট এই আদেশ জারি করলো? কবে হবে এই শিক্ষক নিয়োগ মামলার শুনানি? আদৌ কি পাবে চাকরি প্রার্থীরা পাবে সুবিচার? এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আমাদের পেজটি ফলো করুন।

ADVERTISEMENTS

West Bengal Primary TET Recruitment Case in 2023

চাকরিপ্রার্থীদের অপেক্ষার প্রহর আবার বেড়ে গেল। ১১ হাজার ৫০০ শূন্য পদে Primary TET Recruitment হওয়ার কথা ছিল। আবার তা পিছিয়ে দেওয়া হল। এই শূন্য পদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশ জারি করেছিল সুপ্রিম কোর্ট। এবার বিচারপতি হিমা কোহলি আর বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল এর সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ ১১ হাজার ৫০০ প্রাথমিক শিক্ষকের শূন্য পদে যে নিয়োগ প্রক্রিয়া হতে চলেছিল আবার তাতে স্থগিতাদেশ জারি করেছে।

বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি ছিল। মামলার শুনানি সেদিনই হয়। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ এদিন দাবি করেছিল দ্রুত Primary TET Recruitment এর। সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে যে, বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ঘোষিত পদের থেকে শূন্য পদের সংখ্যা বেশি রয়েছে‌‌। তাই পর্ষদ আদালতের নির্দেশ মানবে না। তবে বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের তরফ থেকে পর্ষদের উদ্দেশ্যে নতুন কোন নির্দেশ দেওয়া হয়নি। এই মামলার পরবর্তী শুনানি হতে চলেছে ১২ ই জানুয়ারি।

নতুন বছরে কি ফুটবে সরকারি কর্মীদের মুখে হাসি! বিস্তারিত জানুন।

আপনাদের জানিয়ে রাখি যে, ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে Primary TET Recruitment প্রক্রিয়ার ইন্টারভিউ পর্ব। আর তারপর থেকেই চাকরিপ্রার্থীরা অপেক্ষা করে রয়েছেন নিয়োগের। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ এই মুহূর্তে শিক্ষক নিয়োগ করতে চাইছে। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলার কারণে আপাতত নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট আগেই ১১ হাজার ৫০০ শূন্য পদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে স্থগিতাদেশ জারি করেছিল।

Primary TET Admit Card (প্রাইমারি টেট অ্যাডমিট কার্ড)

আর সেই কারণেই এখনও পর্যন্ত Primary TET Recruitment করতে পারছে না প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ছাড়া প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ করা যাবে না‌। তাই পর্ষদ চেয়েও নিয়োগ করতে পারছে না। তবে আগামী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে ১২ ই জানুয়ারি। সেদিন যদি সুপ্রিম কোর্টের তরফ থেকে স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়া হয় তাহলে পুনরায় নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে।

২৪ ডিসেম্বরের প্রাইমারী টেট পরীক্ষা ফের পিছিয়ে যাবে? জানিয়ে দিল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

আর ভাগ্য খুলে যাবে ১১ হাজার ৫০০ জন চাকরিপ্রার্থীর। বিচারপতি হিমা কোহলি আর বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল এর সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ ১১ হাজার ৫০০ প্রাথমিক শিক্ষকের শূন্য পদে যে নিয়োগ প্রক্রিয়া হতে চলেছিল আবার তাতে স্থগিতাদেশ জারি করেছে। এই সম্পর্কে পরবর্তী খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করতে পারেন।
Written By Aindrila Dhani.

Leave a Comment