Lakshmi Bhandar Scheme: 1000 টাকা ঢুকছে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে! এই কাজ না করলে কিন্তু পাবেন না, জানুন

Share:

Lakshmi Bhandar Scheme: মানুষের সুবিধার্থে ইতিমধ্যেই একাধিক স্কিম চালু করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিশেষ করে নারীদের ক্ষমতায়ন এবং নারীদের উন্নতির জন্য চালু করেছেন লক্ষ্মী ভাণ্ডারের মতো প্রকল্প। সম্প্রতি বাজেট পেশ করার সময়ই দেখা গিয়েছিল লোকসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিতে।

ADVERTISEMENTS

How to apply Lakshmi Bhandar Scheme

চলতি বছরে যে সময়ে করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের (Lakshmi Bhandar Scheme) তরফ থেকে বাজেট পেশ সেই দিনই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বিখ্যাত প্রকল্প লক্ষ্মী ভাণ্ডারের টাকা বাড়তে চলেছে। লক্ষ্মী ভাণ্ডার প্রকল্পটি চালু হয়েছিল ৩০ শে জুলাই ২০২১ সালে।

প্রত্যেকটি পরিবারের প্রাপ্তবয়স্ক মহিলা সদস্যরা যাতে মাসিক ন্যূনতম কিছু আর্থিক সহায়তা পান সেটাই ছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রধান লক্ষ্য। একটা সময় শুধুমাত্র দুয়ারে সরকার কর্মসূচির শিবিরে মহিলাদের লক্ষ্মী ভাণ্ডারের প্রকল্পে নাম তোলা হতো। বর্তমানে এই প্রকল্পের আওতায় যে কোনও সময়ই অন্তর্ভুক্ত হতে পারেন মহিলারা।

বিভিন্ন প্রয়োজনীয় নথি সহ লক্ষ্মীর ভাণ্ডার (Lakshmi Bhandar Scheme) প্রকল্পে নাম তোলা যায় অনলাইন এবং অফলাইন দুই মাধ্যমেই। কিন্তু অনেকেই জানেন না কীভাবে অনলাইন এবং অনলাইন দুই মাধ্যমের মধ্যে দিয়ে মানুষ তাদের নাম নথিভুক্ত করবেন লক্ষ্মী ভাণ্ডার প্রকল্পে।

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের বাজেটে নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জানা গিয়েছিল, লক্ষ্মী ভাণ্ডারের টাকা বাড়িয়ে হাজার টাকা করে দেওয়া হচ্ছে। যে সমস্ত সংখ্যালঘু মানুষেরা এতদিন ধরে লক্ষ্মী ভাণ্ডারের জন্য পেয়ে এসেছেন হাজার টাকা তাদের টাকা বেড়ে হচ্ছে ১২০০ টাকা। তবে তা কবে থেকে চালু হবে সেই সময় পরিষ্কার বলা না হলেও সম্পত্তি জানা যাচ্ছে আগামী এপ্রিল মাস থেকেই বাড়ছে লক্ষ্মী ভাণ্ডারের প্রকল্পের টাকা।

এই সময় প্রত্যেকেরই চেক করা উচিত তাদের নাম নথিভুক্ত রয়েছে কিনা লক্ষ্মী ভাণ্ডারের প্রকল্পে! যদি এই প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত না থাকে তাহলে কীভাবে নিজের নাম তুলবেন? শুধু তাই নয় কিভাবে নিজের স্ট্যাটাস চেক করবেন তাও জেনে নেওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

কীভাবে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার (Lakshmi Bhandar Scheme) প্রকল্পে নিজের নাম তুলবেন?

ইচ্ছুক ব্যক্তিরা অফলাইন এবং অনলাইন দুই রকম ভাবেই নাম তুলতে পারবেন এই প্রকল্পের আওতায়। যে সমস্ত আবেদনকারীরা অফলাইনে নিজের নাম নথিভুক্ত করাতে চান এই প্রকল্পে তাদেরকে সরাসরি যোগাযোগ করতে হবে দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে। সেখান থেকে একটি ফর্ম দেয়া হবে। দেয়া হবে একটি অ্যাক্টিভ ইউনিক নম্বর। সেই ফর্মে বসিয়ে দিতে হবে সেই ইউনিক নম্বরটি।

যে সমস্ত আবেদনকারীরা অনলাইনে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করতে ইচ্ছুক তারা প্রথমে চলে যাবেন গুগল ক্রোম ব্রাউজারে। সেখানে সরাসরি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ওয়েবসাইটে চলে আসতে হবে তাদের। সেখান থেকে ডাউনলোড করতে হবে পিডিএফ ফরম্যাটে আবেদন পত্রটি। এছাড়াও আবেদনপত্র ডাউনলোড করতে পারবেন এই লিংকে ক্লিক করেও।

এরপর প্রিন্ট আউট বার করতে হবে এই আবেদন পত্রের। যেখানেই নিজের ছবি লাগানোর জায়গা রয়েছে সেখানে লাগাতে হবে নিজের ছবি। এরপরে প্রয়োজনীয় নথি সমেত জমা করতে হবে আবেদন পত্রটি স্থানীয় পঞ্চায়েত অফিস কিনবা ওয়ার্ডে।

আরও খবর জানতে ফলো করুন আমাদের দৈনিক নিউজ বাংলাকে

কী কী প্রয়োজনীয় নথি (Lakshmi Bhandar Scheme) লাগবে?

  • আধার কার্ড
  • স্বাস্থ্য সাথী কার্ড
  • ব্যাংক অ্যাকাউন্টের বিবরণ
  • পাসপোর্ট সাইজ ছবি
  • মোবাইল নম্বর

Written By Tithi Adak

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment